বদহজম হলে করণীয় – বদহজম,পেটে ব্যথা, জ্বলন থেকে রক্ষার ঘরোয়া উপায়

বদহজম হলে করণীয়: খাবার বদহজম হলে একাধিক শারীরিক অস্বস্তি এবং পেটে ব্যথা, জ্বলন ইত্যাদি সমস্যা দেখা দেয়। এমনকি বমির মত উপসর্গও দেখা দেয়। অনেকেই এই ভয়ে অনেক ধরনের খাবার এড়িয়ে চলেন। বদহজমের সমস্যা থেকে দ্রুত আরাম পেতে ঘরোয়া কিছু উপায় ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

বদহজম হলে করণীয় - বদহজম,পেটে ব্যথা, জ্বলন থেকে রক্ষার ঘরোয়া উপায় Copyright Free Image by pixabay.com -6152145_1920
জিরা বদহজম দূর করে

জিরাপানি

জিরাপানি বদহজমে অনেক উপকার করে। জিরাপানি বানাতে যা করবেন এক চা চামচ জিরা নিয়ে ভেজে ফেলুন। এবার জিরা গুড়াএকটু ভাঙা ভাঙা করে । এই গুড়াটি একগ্লাস পানিতে মিশিয়ে প্রতিবার খাবারের সময় পান করুন। দেখবেন ম্যাজিকের মতো কাজ করে। পরিমিত ব্যবহার করুন। 

বেকিং সোডা

বেকিং সোডার মধ্যে সোডিয়াম বাইকার্বোনেট রয়েছে যা পেটের অ্যাসিডকে নিষ্ক্রিয় করতে সহায়তা করে। জলের সঙ্গে বেকিং সোডা মধু এবং লেবুর রস দিয়ে পান করলে আপনি বদহজমের সমস্যা থেকে রক্ষা পাবেন। তবে এটি প্রতিনিয়ত ব্যবহার করবেন না। শুধুমাত্র বদহজম বেশি হলে প্রয়োগ করুন।

আদা

আদায় জিঞ্জারোল সহ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে যা বদহজম এবং বমি বমি ভাব উপশম করার জন্য পরিচিত। এর ফেনোলিক যৌগগুলি গ্যাস্ট্রিক সংকোচন হ্রাস করে এবং গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল জ্বালা উপশম করে। কাঁচা আদা কয়েক টুকরা খেতে পারেন। শুকনা আদার চেয়ে কাঁচা আদা ব্যবহার ভালো হবে।

ধনের বীজ

ধনের বীজে অ্যান্টিস্পাসমোডিক্স এবং বিরোধী প্রদাহজনক বৈশিষ্ট্যে রয়েছে।যা আপনাকে পেট খারাপ বা বদহজম থেকে মুক্তি দেয়। আপনার হজম প্রক্রিয়াকে আরও উদ্দীপিত করে। ধনে লিভারকে বিষমুক্ত করে এবং ক্ষুধা বাড়ায়, বদহজম নিরাময় করে। ধনের বিজ স্বাদ বাড়ায়। এটা নিয়মিত ব্যবহার করতে পারেন।

বদহজম হলে করণীয় - বদহজম,পেটে ব্যথা, জ্বলন থেকে রক্ষার ঘরোয়া উপায়- Copyright Free Image by pixabay.com -337445_1920
আমলকী

মৌরি

মৌরিতে অ্যান্টি- ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টি- ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা পেটের ব্যথা উপশমের পাশাপাশি বদহজমের থেকে রেহাই দেয়।  মৌরি পানিতে ভিজিয়ে এবং চিবিয়ে খেতে পারেন। তরে মৌরি পেস্ট করে গরম পানিতে ৫-১০ মিনিট ফুটিয়ে পান করলে বেশি উপকার পাবেন।

আমলকী

আমলকীর মধ্যে বিভিন্ন অ্যাফ্রোডিসিয়াক, মূত্রবর্ধক, জোলাপ। এর কার্মিনেটিভ, অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টিভাইরাল বৈশিষ্ট্য রয়েছে।

এই বৈশিষ্ট্যগুলি আপনার হজম প্রক্রিয়াকে উদ্দীপিত করতে সহায়তা করে, বদহজম, অম্বল বা অম্লতাকে নিরাময় করে।                                                                       

অ্যাপেল সাইডার ভিনিগার

বদহজম হলে করণীয় - বদহজম,পেটে ব্যথা, জ্বলন থেকে রক্ষার ঘরোয়া উপায়

অ্যাপেল সাইডার ভিনিগারে ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, পটাসিয়াম, ক্যালসিয়াম এবং অন্যান্য খনিজ পদার্থের একটি চমৎকার উৎস যা হজমে সহায়তা করে।  এক গ্লাস পানিতে মধুর সঙ্গে এটি পান করতে পারেন।

বদহজম হলে করণীয়র মধ্যে আছে – যাঁদের গ্যাস, অম্বল ও পেটের ব্যথায় কষ্ট হয়,  তারা কিছু খাবার খেলে কষ্ট বেড়ে যাচ্ছে। সেই সব খাবার একেবারেই খাবেন না দুধ, শাক, গমের প্রোডাক্ট, যেমন রুটি, বিস্কুট, ডিপ ফ্রাই অর্থাৎ তেলেভাজা খাবার বাদ দিন।

বদহজম হলে করণীয় যা তার মধ্যে – মিষ্টি, কফি, ফাস্টফুড যেমন রোল, চাউমিন খাবারের তালিকা থেকে বাদদিন। বাড়িতে রান্না খাবার খেতে হবে, নুন খাওয়া নিয়ন্ত্রণে রাখতেহবে। বেশি নুন খেলে অ্যাসিডিটি বাড়ে। অনেকক্ষণ না খেয়ে থাকলে পেটে ব্যথা ও অ্যাসিডিটির ঝুঁকি বাড়ে।

বদহজম হলে করণীয় অনেক কিছুই আছে। তবে বদহজম অনেক খানি জীবন যাপনের অভ্যাসের উপরে নির্ভরশীল। তাই এমন ধরণের অভ্যাস গড়ে তুলুন যেন বদহজম কম হয়। ধুমপান ত্যাগ করুন। না পারলে অন্তত ধুমপান কমান। খালি পটে ধুমপান করবেন না। চা বা কফির পরেই ধুমপানের অভ্যাস থাকে অনেকের। এই অভ্যাসটি ধুমপান এবং চা কফি দুটোর পরিমানই বাড়ায়। তাই যতটা সম্ভব এই অভ্যাস নিয়ন্ত্রণ করুন।

নিয়মিত ঘুমের সাথে বদহজম এর সম্পর্ক আছে। আপনার যদি নিয়মিত সঠিক সময়ে ঘুম না হয় তবে হা হজমের উপরে প্রভাব ফেলতে পারে। তাই চেষ্টা করুন সময়তম ও নিয়মিত ঘুমাতে। ঘুম অনিয়মিত হয়ে গেলে আবার নিয়মে আনা খুব কঠিন। তাই এর জন্য পরিকল্পনা দরকার। ঘুম এরকম অনিয়মিত হলে কঠোরর পরিকল্পনা করুন। নিদ্রিষ্ট সময়ে মোবাইল ফোন বা টিভির সামনে না থেকে ঘুমাতে যান। ঘুমের সময় একটা বই পড়তে পারেন। তবে একদম ঘুম না আসলে শুরুতে অল্প মাত্রায় কয়েকদিন স্লিপিং পিল খেয়ে নিতে পারেন। ঘুম নিয়মিত হলে ছেড়ে দিন।

আপনার শারিরিক শ্রমের সাথে পাচকতন্ত্রের সম্পর্ক সরাসরি। তাই শারিরিক পরিশ্রম একদম না হলে তা ক্রমশো হজমে প্রভাব ফেলতে থাকে। তাই ব্যায়াম না করতে পারলেও নিয়মিত হাটাচলা করুন। কখনো বেশি খাওয়া হয়ে গেছে মনে হলে বাইরে একটু হেটে বেড়িয়ে আসুন। হাটতে শুরু করলে একটু অম্বল বোধ হতে পারে। সেটাকে খুব গুরুত্ব দেবার দরকার নেই। হাটতে হাটতে যখন একটু স্বাভাবিক লাগবে তখন বিশ্রাম কররুন। একটু বিশ্রাম নিয়ে পানি পান করুন।

বদহজম ও তার প্রতিকার সর্ম্পকে আরও জানুন:

এডুকেশন নিউজ সাইটটি ব্যবহার করায় আপনাকে ধন্যবাদ। আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে “যোগাযোগ” আর্টিকেলটি দেখুন, যোগাযোগের বিস্তারিত দেয়া আছে।